Home / প্রচ্ছদ / স্বাধীন গণমাধ্যমের অত্যাবশ্যকীয় ভূমিকায়, তথ্য: জনসাধারণের মঙ্গল হিসাবে আবির্ভূত

স্বাধীন গণমাধ্যমের অত্যাবশ্যকীয় ভূমিকায়, তথ্য: জনসাধারণের মঙ্গল হিসাবে আবির্ভূত

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ আজ ০৩ মে, বিশ্বজুড়ে স্বীকৃত বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবসে আমরা মুক্ত, সমৃদ্ধ ও সুরক্ষিত গণতান্ত্রিক সমাজ গড়ার লক্ষ্যে তথ্য ও ধারণার অবাধ আদান-প্রদান ত্বরান্বিত করতে স্বাধীন গণমাধ্যমের অত্যাবশ্যকীয় ভূমিকার বিষয়ে জোর দিচ্ছি।

এ বছর সারা বিশ্বে কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলার সময়ে এটা বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ যে, পেশাদার ও সিটিজেন সাংবাদিকরা যাতে তাঁদের দেখা বা শোনা বিষয় এবং নিজেদের মতামত মুক্ত ও স্বাধীনভাবে প্রকাশ করতে পারেন। আমাদের স্বাধীন গণমাধ্যম জীবন রক্ষাকারী তথ্যের আদান-প্রদান ত্বরান্বিত করে, সত্যের সন্ধান ও সেগুলোর যথার্থতা যাচাইয়ে ব্যাপক সময় ব্যয় করে এবং সরকারী কর্মকর্তা ও নির্ভরযোগ্য বিশেষজ্ঞদের উভয়কেই দায়বদ্ধ রাখতে বিশেষভাবে তৈরি কঠিন প্রশ্ন জিজ্ঞাসার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করে। এক্ষেত্রে স্বচ্ছতা যৌক্তিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও দাপ্তরিক জবাবদিহিতা উভয়ই নিশ্চিত করে।

Muktokantho.com
বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম সূচকে বাংলাদেশ গত বছরের তুলনায় এবছর আরও এক ধাপ পিছিয়ে ১৫২তম অবস্থানে ১৮০টি দেশের মধ্যে।

আজ যখন সকল সরকারী কর্মকর্তার উচিত স্বাধীন গণমাধ্যমের জরুরী ভূমিকা পালনে তাদের সক্ষমতার সুরক্ষা দেয়া- তখন আমরা দেখছি যে, কিছু দেশের সরকার উদ্দেশ্যমূলকভাবে ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে, সঠিক ও দরকারী তথ্য কাটছাঁট করছে এবং স্বাধীন সাংবাদিকদের সক্ষমতার ওপর আগ্রাসী নিয়ন্ত্রণ আরোপ করে জনগণের সেবাদানে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলায় সরকারী কার্যক্রম বিষয়ে প্রশ্ন করার সাহস দেখানো এবং সমালোচনাধর্মী প্রতিবেদন প্রকাশের দায়ে সাংবাদিকদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তাঁদের সংবাদ-নিবন্ধ ও ওয়েবসাইট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। নিজেদের দায়িত্ব এড়াতে কর্মকর্তারা সাংবাদিকদের চলাফেরার ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করেছেন, সরকারের সমালোচনা হিসাবে বিবেচিত তথ্য-প্রতিবেদন দমন করতে তাঁদেরকে ফৌজদারি শাস্তির হুমকি দেয়া হয়েছে। আমরা অবিলম্বে এ ধরনের তথ্য নিয়ন্ত্রণ বন্ধের আহ্বান জানাই।

আমরা স্বাধীন গণমাধ্যমকে তাদের সাহসিকতা ও সংকল্পের জন্য সাধুবাদ জানাই। তাদের কাজটি দুরূহ, এবং এর সুফল পাই আমরা সবাই। অনেক সাংবাদিক তাঁদের জীবন ও স্বাধীনতা বিপন্ন করে সংঘাত ও দুর্যোগ পীড়িত এবং মহামারীতে চরম বিপর্যস্ত এলাকার পাশাপাশি অবৈধভাবে আটক হওয়া বা সহিংসতার ঝুঁকিতে থেকে কাজ করেন। কাজের জন্য কারাবন্দী হওয়া সাংবাদিকদেরকে মুক্তি দিয়ে তাঁদের বিরুদ্ধে অপরাধ সংঘটনকারীদেরকে জবাবদিহিতার আওতায় আনতে আমরা সকল দেশের সরকারের প্রতি আহ্বান জানাই। সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের নিরাপত্তা উৎসাহিত করার মাধ্যমে জনগণের প্রতি সম্মান প্রদর্শনকারী দেশগুলোর সরকারকে আমরা সাধুবাদ জানাই। সাংবাদিকদের পক্ষে সমর্থন আদায়ে নিরলসভাবে কর্মরত সুশীল সমাজ প্রতিষ্ঠান এবং স্বাধীন গণমাধ্যমের দীর্ঘস্থায়ীত্ব জোরদারে ব্যক্তিমালিকানাধীন খাতের উদার সহায়তা দানকারীদেরকে আমরা সাধুবাদ জানাই। পরিশেষে আমরা অন্যদেরকেও এই দৃষ্টান্ত অনুসরণের আহ্বান জানাই।

রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস মঙ্গলবার ২০২১ সালের সূচক প্রকাশ করে
রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস মঙ্গলবার ২০২১ সালের সূচক প্রকাশ করে

রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস মঙ্গলবার ২০২১ সালের সূচকে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে আরএসএফের ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে, ২০২০ সালে করোনাভাইরাস সংকট এবং লকডাউন চলাকালে সাংবাদিকদের ওপর পুলিশ ও বেসামরিক সহিংসতা উদ্বেগজনকভাবে বেড়েছে। মহামারি ও সমাজে তার প্রভাব নিয়ে প্রতিবেদনের জন্য অনেক সাংবাদিক, ব্লগার, কার্টুনিস্ট গ্রেপ্তার ও বিচারের মুখোমুখি হয়েছেন।

আর বিশেষ উদ্দেশ্য অর্জনে সাংবাদিকদের মুখ বন্ধ করতে সরকারের কাছে এখন একটি বিচারিক অস্ত্র আছে। তা হলো ২০১৮ সালের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন। এই আইনে ‘নেতিবাচক প্রচারণা’র দায়ে সর্বোচ্চ সাজা ১৪ বছরের কারাদণ্ড। ফলে আত্মনিয়ন্ত্রণ (সেলফ-সেন্সর) অভূত পর্যায়ে পৌঁছেছে। সম্পাদকেরা সংগত কারণেই জেল বা গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠান বন্ধের ঝুঁকি এড়াতে চান।

সর্বশেষ ২০১৯ সালে পুনর্নির্বাচিত হওয়ার পর সরকার গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে লক্ষণীয় কঠোর অবস্থান নিয়েছে। দলীয় নেতা-কর্মীদের হাতে সহিংসতার শিকার হয়েছেন সাংবাদিকেরা। তাঁদের নির্বিচারে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওয়েবসাইট ব্লক করে দেওয়া হয়েছে।

যেসব সাংবাদিক দুর্নীতি বা স্থানীয় অপরাধী চক্র নিয়ে অনুসন্ধান করেন, তাঁরা ভয়াবহ নির্যাতনের শিকার হন। এই নির্যাতনে মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গণমাধ্যম কতটা স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছে, তার ভিত্তিতে ২০০২ সাল থেকে আরএসএফ এই সূচক প্রকাশ করে আসছে। ২০১৩ সাল থেকে এই সূচকে বাংলাদেশ আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*