Home / অপরাধ / মোদি সরকারের ক্ষমতা খর্ব, সিবিআই তদন্তে রাজ্যের সম্মতি বাধ্যতামূলক করা হলো

মোদি সরকারের ক্ষমতা খর্ব, সিবিআই তদন্তে রাজ্যের সম্মতি বাধ্যতামূলক করা হলো

নিউজ ডেস্কঃ ভারতে নরেন্দ্র মোদির বিজেপি সরকার দীর্ঘ দিন ধরেই রাজ্য সরকারদের হেনস্থা করতে কিংবা বিরোধী মত দমনে ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে (সিবিআই) ব্যবহার করে আসছিল। এবার ক্ষমতার এই অপব্যবহার থেকে কেন্দ্রীয় সরকারকে বিরত রাখতে পদক্ষেপ নিলো ভারতের শীর্ষ আদালত। এখন থেকে সিবিআই তদন্তের জন্য রাজ্য সরকারের অনুমতি নেয়া বাধ্যতামূলক বলে বৃহস্পতিবার নির্দেশনা দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

বৃহস্পতিবার দিল্লির বিশেষ পুলিশ আইন নিয়ে একটি মামলায় শীর্ষ আদালত এই নির্দেশনা দিয়েছে। সেখানে বলা হয়, কোনও রাজ্যে তদন্তের জন্য সিবিআই-কে সংশ্লিষ্ট রাজ্যের সম্মতি জোগাড় করতেই হবে। এটা বাধ্যতামূলক। একই সঙ্গে সিবিআই-এর তদন্তের মেয়াদ বাড়ানোর জন্যও সংশ্লিষ্ট রাজ্যের সম্মতি নিতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারকে। সংবিধানের যুক্তরাষ্ট্রীয় চরিত্র বজায় রাখতেই এই সম্মতি বাধ্যতামূলক জানিয়ে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, জানিয়েছে, কোনও রাজ্যে ক্ষমতাপ্রয়োগ ও আইনি অধিকারের মেয়াদের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারের সম্মতি প্রয়োজন সিবিআই-এর। সেই সম্মতি না পাওয়া অবধি সিবিআই কোন তদন্ত শুরু করতে পারবে না।

দিল্লির বিশেষ পুলিশ আইনে (১৯৪৬) বলা হয়েছিল, সিবিআই তদন্তের ক্ষেত্রে দিল্লি ছাড়া অন্য রাজ্যগুলোর সম্মতি নেয়া জরুরি। সেই সময় দিল্লি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ছিল বলে সিবিআই-এর জন্য সম্মতি আদায়ের প্রয়োজন ছিলনা। কিন্তু দিল্লি এখন একটি রাজ্যে রূপান্তরিত হয়েছে, তাই দিল্লির কোনও ঘটনার তদন্তের ক্ষেত্রেও এই সম্মতি পেতে হবে সিবিআই-কে।

বিরোধীদের দীর্ঘ দিনের অভিযোগ, অন্য রাজ্যে ক্ষমতাসীন দলগুলোকে বেকায়দায় ফেলতে কেন্দ্রে যে দল বা জোট ক্ষমতায় থাকে তারা ব্যবহার করে সিবিআই, ইডি-র মতো কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলোকে। বিরোধীদের আরও অভিযোগ ছিল, অন্য দলগুলোর হাতে থাকা রাজ্যগুলোতে বিধানসভা নির্বাচনে সময় এলে দুর্নীতিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে সেই সব রাজ্যের রাজনৈতিক নেতার বিরুদ্ধে বা কোনও ঘটনায় সিবিআই তদন্ত শুরুর প্রক্রিয়া শুরু হয়।

পশ্চিমবঙ্গ-সহ ৮টি রাজ্য ইতিমধ্যেই বিভিন্ন ক্ষেত্রে সিবিআই-কে তদন্তের ব্যাপারে সম্মতি দিতে অস্বীকার করেছে। রাজ্যগুলির মধ্যে রয়েছে রাজস্থান, ঝাড়খণ্ড, মহারাষ্ট্র, ছত্তীসগঢ়ও। সম্প্রতি পাঞ্জাব সরকারও তাদের সাথে যোগ দিয়েছে। আগামী বছরের মাঝামাঝি পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। যে কোন মূল্যে সেখানে জিততে মরিয়া বিজেপি’র জন্য সুপ্রিম কোর্টের এই নির্দেশনা বড় একটি ধাক্কা বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সূত্র: টিওআই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*